শেফ গরিমা আরোরা

18

মেয়ে হয়ে নিজের ক্যারিয়ারকে সাফল্যের দাঁড় প্রান্তে পৌঁছে নিয়ে গিয়েছেন তেমন একজন নারী শেফ এর নাম গরিমা আরোরা। যিনি প্রথম ভারতীয় নারী শেফ যে ২ টি মিশেলিন স্টার পেয়েছেন।

 

পরিচিতি

গরিমা আরোরা ৯ নভেম্বর ১৯৮৮ সালে পাঞ্জাব পরিবারে মুম্বাইতে জন্মগ্রহণ করেন। তার বেড়ে ওঠা মুম্বাইয়ে। তিনি বিবাহিত। আরোরার হাজবেন্ড রাহুল ভার্মা পেশায় একজন পাইলট। তাদের একজন সন্তান রয়েছে। গরিমা তার মাকে রান্নায় সাহায্য করতে করতে রান্না ঘরে তার প্রবেশ। মাঝে মধ্যে সে তার ভাই নওরোজের সাথে বিভিন্ন এক্সপ্রিমেন্ট করত রান্না নিয়ে। সে সাংবাদিকতা নিয়ে University of Mumbai (ইউনিভার্সিটি অফ মুম্বাই) থেকে স্নাতক ডিগ্রি অর্জন করেন। এরপর প্রায় ৬ মাস সাংবাদিকতায় যুক্ত ছিলেন। পরবর্তীতে আরোরা রান্নাকে পেশা হিসেবে গ্রহণ করার জন্য সিদ্ধান্ত নেন।

 

ক্যারিয়ার

২০০৮ সালে আরোরা ফ্রান্স পাড়ি জমান। সেখানে Le Cordon Bleu(লে কর্ডন ব্লু) থেকে স্নাতক সম্পন্ন করেন। তারপর The aoberoi hotel chain(আওবেরয় হোটেল চেইন) ও Bangkok’s Gaggan(ব্যাংককের গগন) ছাড়াও তিনি বিভিন্ন রেস্টুরেন্টে জব করেন ও নানা ধরনের অভিজ্ঞতা অর্জন করে। তিনি গগন আনন্দ, গর্ডন রামসে ও রেনে রেডজেপির সাথে Noma in Copenhagen (নোমা ইন কোপেনহহেগেন) এ কাজ করেছেন।
এরপর ২০১৭ সালে সে তার নিজেস্ব রেস্টুরেন্ট Gaa(গা) খোলেন ব্যাংককে। রেস্টুরেন্টি তিন তলা বিশিষ্ট, ঐতিহ্যবাহী ভারতীয় কৌশল ব্যবহারে তৈরি করা ও ঐতিহ্যবাহী ভারতীয় আধুনিক খাবারের মেনু রয়েছে। এরপর Eat well নামে ডেলিভারি ব্যবসায় পরিচালনা করেন। 

২০১৮ সালে গরিমা আরোরা ও তার রেস্টুরেন্ট Gaa (গা) মিশেলিন স্টার পেয়েছেন। যা গরিমাকে প্রথম ভারতীয় নারী শেফ মিশেলিন স্টার অর্জনকারী হিসেবে পরিচিত করেছে।

২০১৯ সালের ফেব্রুয়ারিতে World’s 50 Best Restaurant কতৃক Asia’s Best Female Chef হিসেবে মনোনীত হয়। মার্চে Gaa(গা) এশিয়ার ৫০ টির সেরা রেস্টুরেন্টের মধ্যে ১৬ তম স্থান অধিকার করে। জুনে World’s 50 Best Restaurant হতে ৯৫ তম স্থানে Gaa এর নাম তালিকাভূক্ত করা হয়। আগষ্টে ‘Food Foward India’ নামে একটি প্রকল্প যা ইন্ডিয়ান ফুডের অগ্রাধিকার দেয় – এই প্রকল্পটি তিনি চালু করেছিলেন। তাকে ‘Master Chef India’ ২০২৩ এর জাজ হিসেবে যুক্ত করা হয়। আরোরা ২০২৩ সালের ডিসেম্বরে আরো একটি মিশেলিন স্টার পেয়েছেন। তিনিই প্রথম ভারতীয় নারী শেফ যে ২ টি মিশেলিন স্টার পেয়েছেন।

শেফ পেশায় মেয়েদের এগিয়ে আসতে হবে, শুধু পাঁচ তারকা হোটেলে কাজ করার চিন্তা বাদ দিয়ে পরিপূর্ণ ভাবে নিজেদের প্রস্তুত করতে হবে। নিজের মধ্যে স্কিল, জ্ঞান আর পরিশ্রম করার মানসিকতা ধারণ করতে পারলে। এই পেশায় অনেক দূর যাওয়া যাবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Close
Your custom text © Copyright 2024. All rights reserved.
Close